শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ১০:৫১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বাউফলে শিক্ষার্থীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার হিলিতে চোরাই মোটরসাইকেলসহ আটক ২ ধর্ষণ রোধে আইনশৃক্ষলা বাহিনী একযোগে কাজ করছে- র‌্যাব মহাপরিচালক ঠাকুরগাঁওয়ে দুর্গাপূজা উপলক্ষে মেয়র মির্জা ফয়সাল আমিনের এর পক্ষ থেকে আর্থিক অনুদান ঠাকুরগাঁওয়ে মরহুম এ্যাড. আনিসুর রহমানের দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী পালন ঠাকুরগাঁওয়ে কর্মহীন,অসহায় দরিদ্রদের মাঝে বকনা গরুর বাছুর বিতরণ ভাসমান অবস্থায় সন্ধ্যা নদী থেকে নারী কর্মকর্তাকে উদ্ধার মহাষষ্ঠীর মধ্য দিয়ে শারদীয় দুর্গাপূজোর মূল আনুষ্ঠানিকতা শুরু (ভিডিওসহ) যুদ্ধাপরাধী কায়সারের মৃত্যু পরোয়ানা ষষ্ঠী থেকে দশমী, কোন কোন রীতি পালিত হয় দুর্গা আরাধনায়

ডে ট্যুরে ঘুরে আসুন ‘ঘোড়াশাল’

লাইফস্টাইল ডেস্ক
  • হালনাগাদ সময় : মঙ্গলবার, ২ এপ্রিল, ২০১৯
  • ৫২০ বার

ঢাকার পার্শ্ববর্তী এলাকা নরসিংদী। এ জেলারই একটি উপজেলা হলো ঘোড়াশাল। ভ্রমণপিপাসুদের জন্য এটি একটি দারুণ জায়গা। কেন যাবেন ঘোড়াশাল? কী কী দেখার আছে সেখানে?

দর্শনীয় স্থান-

ঘোড়াশালের ডাংগা ইউনিউনে রয়েছে শত বছরের পুরোনো জমিদার বাড়ি। নিপুণ কারুকাজ করা জমিদার বাড়িটি নির্মাণ করেন মোঘল আমলের জমিদার লক্ষণ সাহা। বাড়ির কারুকাজ মুগ্ধ হওয়ার মতো। এছাড়া বাড়ির সামনে রয়েছে সান বাঁধানো পুকুর।

পুকুর ঘাটে দেখতে পাবেন মূল্যবান কষ্টিপাথরের ঢালাই। বর্তমানে একজন উকিল এই বাড়ির কিছু অংশ ক্রয় করেছেন বলে এখন বাড়িটি উকিল বাড়ি নামে পরিচিত। বাড়িটির পাশেই রয়েছে আরও দুটি পরিত্যক্ত জমিদার বাড়ি।

ঘোড়াশাল মিয়া পাড়া রোডে রয়েছে আরেকটি জমিদার বাড়ি যা “ঘোড়াশাল জমিদার বাড়ি” নামে পরিচিত। স্থানীয়ভাবে মনু মিয়ার বাড়ি বললেই সবাই চেনে। এ বাড়িটিও বেশ পুরোনো একটি জমিদার বাড়ি। এ বাড়ির ভেতরের বাগান আপনাকে অবশ্যই মুগ্ধ করবে।

ঘোড়াশালের পাশ দিয়েই বয়ে গেছে শীতলক্ষ্যা নদী। নদীর পাড়ের নির্মল বিশুদ্ধ বাতাস মন ভালো করে দেয় নিমিষেই। চাইলে নৌকা নিয়ে নদীতে ঘুরা যায়।

ঘোড়াশাল টু পলাশ বাইপাস রাস্তাটির সৌন্দর্য মুগ্ধ করার মতো। রাস্তার দুপাশে গাছের সারি, আর রাস্তার পাশেই রয়েছে পদ্মবিল। বর্ষাকালে বিলটি পানিতে টইটুম্বুর থাকে। তখন বিলে দেখা যায় পদ্মফুল এবং শাপলা ফুল। বিলের গভীরতা বেশি না। তাই চাইলে নিজে পানিতে নেমেও ফুল উঠানো যায়।

এছাড়াও দর্শনীয় জায়গার মধ্যে রয়েছে ঘোড়াশাল তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র, ইউরিয়া সারখানা।

কী খাবেন-

ঘোড়াশালে আসলে অবশ্যই ভাই ভাই মিষ্টান্ন ভান্ডারের মালাইচপ এবং দই খেতে ভুলবেন না। ঘোড়াশালের আনারস খুব সুস্বাদু। এছাড়া রয়েছে লটকন, কলা।

কীভাবে যাবেন-

ঢাকার গুলিস্থান থেকে মেঘালয় বাসে উঠতে হবে। পাঁচদোনা নেমে সিএনজি নিয়ে ডাংগা বাজার। বাজারের কাছেই লক্ষণ সাহার জমিদার বাড়ি। সেখান থেকে রিক্সায় করে ঘোড়াশাল বাজারে গিয়ে যে কাউকে জিজ্ঞেস করলেই মনু মিয়ার জমিদার বাড়ি পেয়ে যাবেন।

যারা একদিনের ট্যুরে ঢাকার কাছাকাছি কোথাও ঘুরতে যেতে চান, তারা অনায়াসেই ঘুরে আসতে পারেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

© All rights reserved © 2019 journaleye24
Theme Download From journaleye24.com
themesba-lates1749691102