সোমবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২১, ০১:১৬ পূর্বাহ্ন

পীরগঞ্জে বঙ্গবন্ধুর ছবি ও নৌকা প্রতীক ভাঙচুর মামলার আসামিদের আওয়ামীলীগে যোগদান করানোর অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি
  • হালনাগাদ সময় : বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২০
  • ১৯৪ বার

পীরগঞ্জ ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে ৭নং হাজিপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও জাতীয় পার্টির বর্তমান সভাপতি সিদ্দিকুর রহমানসহ
বঙ্গবন্ধুর ছবি ও নৌকা প্রতীক ভাঙচুর মামলার আসামিদের আওয়ামী লীগে যোগদান করানোর অভিযোগ উটেছে।

এতে ফুঁসে উঠেছে পীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের একটি অংশ।

জানা গেছে, গত ২৫ নভেম্বর বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলার হাজিপুর ইউনিয়নের খটশিংগা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে হাজিপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলিগের এক বিশেষ কর্মীসভায় বর্তমান চেয়ারম্যান ও জাতীয় পার্টির নেতা সিদ্দিকুর রহমান তার ইউনিয়নের মুষ্টিকয়েক নের্তাকর্মীসহ আওয়ামীলীগে যোগদান করান পীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলী ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের প্রথম সারির নেতারা।

তার মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাবেক এমপি ইমদাদুল হক,সাধারণ সম্পাদক রেজওয়ানুল হক বিপ্লব, সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ইকরামুল হক, সাবেক সহ সভাপতি সামিমুজ্জামান জুয়েল,ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ডাঃ আনছার আলী,সাধারণ সম্পাদক গয়ারাম রায় প্রমুখ।

এ যোগদান করানোর ব্যাপারে অনেকের দ্বিমত রয়েছে বলে জানা গেছে। এ যোগদানের বিষয়ে পুরো ঠাকুরগাঁও জেলাসহ পীরগঞ্জ উপজেলার প্রকৃত আওয়ামীলীগ কর্মীদের মধ্যে বেশ মিশ্র প্রতিক্রিয়া শুরু হয়েছে।

উল্লেখ্য যে, গত ২০১৬ সালের ২৬’এপ্রিল হাজিপুর ইউপি নির্বাচন পরবর্তী সময় বিজয় মিছিলের নামে সন্ত্রাসী কায়দায় বঙ্গবন্ধুর ছবি, নৌকা প্রতীক ভাংচুর ও আওয়ামীলীগের প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীনের বাড়িসহ ৭টি বাড়ি ভাঙচুর করে বাড়ির লোকজনদের মারপিট, লুটপাটসহ এলাকায় ত্রাস সৃষ্টি করেন চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান।

এর অভিযোগে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান সহ ১০৯ জনের নাম উল্লেখ করে এবং আরোও অজ্ঞাত নামা ৭০-৮০জনের বিরুদ্ধে থানায় দ্রুত বিচার আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছিল
মামলাটি বর্তমানে আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।

কিন্তু বঙ্গবন্ধুর ছবি, নৌকা প্রতীক ভাংচুর ও নৌকার প্রার্থীর বাড়িতে হামলা চালানোর মামলার ১নং আসামি হাজীপুর ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি সিদ্দিকুর সহ তার সঙ্গের সহযোগী আসামিদের কেন আওয়ামীলীগে যোগদান করালেন কেন করালেন এ নিয়ে বেশ আলোচনা সমালোচনা চলছে।

এই হামলা মামলা লুটপাট বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাঙচুর করার প্রতিবাদে ৩০ এপ্রিল২০১৬ইং তারিখে পীরগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ সভাকক্ষে উপজেলা আওয়ামীলীগ আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলন করেন পীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ। সে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন তৎকালিন পীরগঞ্জ উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আক্তারুল ইসলাম। এসময় উপজেলা আওয়ামীগের যুগ্ম সম্পাদক ও পৌর মেয়র কশিরুল আলম,উপজেলা আ’লীগের সহ সভাপতি শামিমুজ্জামান জুয়েল,অর্থ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন,যুগ্ম সম্পাদক গোলাম রব্বানী,সাংগঠনিক সম্পাদক রেজওয়ানুল হক বিপ্লবসহ অন্যান্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনের লিখিত বক্তব্যে অভিযোগ করা হয়, ২০১৬ সালের মঙ্গলবার(২৬এপ্রিল) হাজিপুর ইউনিয়নের নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমানের নেতৃত্বে সন্ত্রাসী কায়দায় মালগাঁও গ্রাম থেকে একটি বিজয় মিছিল বের করা হয়।মিছিলকারীরা ভেবড়া এলাকায় বঙ্গবন্ধুর ছবি ও নৌকা প্রতীক ভাংচুর করে গুড়িয়ে দেয়। এরপর উপজেলা আ’লীগের অর্থ সম্পাদক ও চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীনের বাড়িসহ আশেপাশের বেশ কয়েকটি বাড়িতে হামলা চালিয়ে বাড়ির নারী-পুরষ ও শিশুদের মারপিট করে লুটপাট চালায়। এসময় সাটিয়া গ্রামের লোক তাদের সন্ত্রাসী তৎপরতায় দিকবিদিক ছুটতে থাকে। তাদের হামলায় অর্ধ শতাধিক লোক আহত হয়। আহতদের মধ্যে অনেকে ঠাকুরাঁও,দিনাজপুর ও রংপুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ও রয়েছিল। এঘটনার প্রতিবাদে স্থানীয় বোর্ডের হাটে একটি আরও প্রতিবাদ সভা করা হয়।

এতে স্থানীয় ও জেলা আ’লীগের নেতারা বক্তৃতা করেন। এছাড়াও সে ঘটনার পর বেশকয়েক দিন সন্ধ্যায় পীরগঞ্জে আ’লীগের পক্ষে ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে পৌর শহরে বিভোক্ষ মিছিল ও বের হয়। এ ঘটনায় পীরগঞ্জ থানায় নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান সহ ১০৯ জনের নাম উল্লেখ করে এবং আরোও অজ্ঞাত নামা ৭০-৮০জনের বিরুদ্ধে থানায় দ্রুত বিচার আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছিল ।

নাম প্রকাশ করার না করার শর্ত্যে স্থানীয় বেশ কিছু আওয়ামীলীগ ও বিএনপির নেতা ও সমর্থকরা বলেন সে দীর্ঘদিন ধরে বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন কিন্তু সুবিধা হাসিলের জন্য জাতীয় পার্টির রাজনীতিতে যোগদান করেন। বর্তমানে এত কিছু ঘটনার পরও সে আওয়ামী লীগে কিভাবে যোগদান করলো আমরা বুঝে ওঠতে পারছি না ।

তবে আমরা এটুকুু বলতে পারি আগামী ২০২১ সালের ইউপি নিবার্চনে নৌকা প্রতীকের মনোয়নের লোভে সে আওয়ামীলীগে যোগদান করলেন।

যার প্রথম রাজনীতি শুরু বিএনপি দিয়ে সে আওয়ামীগার হলো। এই শেষ সময়ে প্রকৃত আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ ও সমর্থকরা এটা মেনে নিতে পারছি না।

এ ব্যাপারে বিভিন্ন গণমাধ্যমে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন,কেউ নতুন আওয়ামীলীগে যোগদান করতে পারবেন না। তবে পারবে আগে সেই এলাকার দায়িত্বে থাকা সাংগঠনিক সম্পাদকের কাছে আবেদন করতে হবে তারা আনুষ্ঠানিক ভাবে যাচাই করে তাদের যোগদান করাবেন।

এ বিষয়ে পীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীগের সভাপতি সাবেক সাংসদ ইমদাদুল হক বলেন,কেউ আওয়ামীলীগকে ভালোবেসে যোগদান করতেই পারে এতে দোষের কিছু নেই।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

© All rights reserved © 2019 journaleye24
Theme Download From journaleye24.com
themesba-lates1749691102